কবিতাঃ “কিছু লিখতে হবে”

0

কবিতাঃ”কিছু লিখতে হবে”
কলমেঃ আবু তাহের
তারিখঃ২৭.১১.২০
গদ্য কবিতা (সাতক্ষীরা)

আজ কয়দিন হলো কি যেন হয়েছে,
কলম ধরতে মন চাচ্ছে না
জানিনা কেন এমন হয়েছে।
যে কলম আমার হাতের বন্ধু
তাকে ছেড়ে আজ কিভাবে থাকছি
এটা ভেবে অবাক হচ্ছি সারাক্ষণ।
এই জানা না জানার ভিড়ে
একটা কথা বার বার উঁকি দিচ্ছে মনে
তাহলে কি আমি আমার ভাল লাগার
শেষ সীমায় এসে পৌঁছেছি?
তার মানে এত দিন যে সব ভাললাগা ছিল আজ তা শেষ হতে চলেছে?

না এটা কখনোই হতে দেওয়া যাবে না
জোর করে হলেও আমি আমার এই
কলমকে হাতের নাগালেই রাখবো,
আমাকে কিছু না কিছু লিখতেই হবে
নাহলে আমার এ হাত যে অসাড় হয়ে
যাবে কলম খাতা ছাড়া।
হা, হা লিখতেই হবে, কবিতা তার ছন্দ
ফিরে পাক আর না পাক।
কলম চালাতেই হবে উপযুক্ত কোন
শব্দ খুঁজে পাই আর না পাই।

আজ মনে হয় শব্দ ভান্ডার গুলো ও
আমার সাথে আড়ি পেতেছে
মনের সমস্ত অলিগলি খুঁজেও কোন শব্দগুচ্ছ পেলাম না, যে পাশাপাশি বসিয়ে কিছু প্রকাশ করবো?
কিছু অব্যক্ত বাসি চিন্তা উগরে দিবো,
না কেন এমন হচ্ছে বুঝতে পারছি না
নাকি আমি আমার ভাবনার আকাশ
থেকে অন্য কোথাও হারিয়ে গেছি?
তাই বুঝি সমস্ত শব্দ অন্য আকাশে
উড়াল দিয়েছে, এটাও কি সম্ভব?

সম্ভব অসম্ভবের বাচবিচার না হয় পরে হবে,
এখন আমাকে কিছু লিখতে হবে
এভাবে সৃষ্টিশীল হাত নিশ্চল ঘড়ির কাটার মত থেমে থাকতে পারে না,
কারখানার নষ্ট মেশিনের মত ক্ষুদ্র ব্রেন নামক ট্রেনটা থেমে থাকতে পারে না।
ওকে বসিয়ে রাখলে ওতো অকেজো হয়ে যাবে,
নানা কু চিন্তা ভর করবে মগজে।
না,না আর সময় ক্ষেপন নয়,
আমি জানি আমার এ হাত যখন তখন থেমে যেতে পারে আজরাইল এর দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে।
যেটুকু সময় পাই সাদা কাগজে কিছু
হিজিবিজি লিখে যাই, তবু তো বসে
থাকার চেয়ে ভাল।
আজ আমি যে সময় টুকু অলস পার করছি?
এই সময় টুকু যদি কবি নজরুল রবীন্দ্রনাথ হায়াতে পেতো নিশ্চয়ই
বাংলা সাহিত্য আরো অনেক সমৃদ্ধ হতো।
আর আমরা সেই মহা মুল্যবান সময়
কে গুরুত্বই দিচ্ছি না।
না,না আর নয়, সাদা কাগজ আর সাদা থাকবেনা
কলমের আলিঙ্গনে হয়ে উঠবে সাদাকালো কবিতার পাতা।
হৃদয়ের গহীন ভাবনার কালিতে আঁকা হবে কাব্যের নকশী কাঁথা।

0

Leave a Comment