করোনা ভাইরাসের ইতিবাচক দিক

3+

আজ বিশ্বজুড়ে একটাই আলোচনা আর সেটা হল করোনা ভাইরাস,, করোনা ভাইরাসের দাপটে আজ গোটা বিশ্ব স্তব্ধ… আজ সারা বিশ্ব জুড়ে লকডাউন চলছে অর্থাৎ বিশ্ববাসী আজ গৃহবন্দি.. রাস্তাঘাট শুনশান,, কল কারখানা মোটামুটি সব বন্ধ কিন্তু এই খারাপ সময়েও অনেক ভালো ঘটনা ঘটছে.. কথায় আছে,”প্রত্যেক জিনিসের ভালো-মন্দ উভয় দিক থাকে”.. ঠিক তেমনই করনা ভাইরাসের যতই খারাপ দিক থাকুক না কেন এর কিছু ভাল দিকও রয়েছে..
আজ করোনার জন্য আমরা সবার খোঁজ নিচ্ছি,, কারোর কোন প্রয়োজনে তার পাশে দাঁড়াচ্ছি.. নানা রকম তথ্য আদান প্রদান করছি,, পরিচিত, অপরিচিত মানুষদের সাবধান হওয়ার কথা বলছি.. এইরকম ভ্রাতৃত্ববোধ , এইরকম সৌহার্দ্য কিছুদিন আগে পর্যন্ত মানুষের মধ্যে ছিল না.. বলাবাহুল্য করোনা সংকট ও আতঙ্ক আমাদের সামাজিকতাকে আরো বাড়িয়ে দিয়েছে..
পারিবারিক বন্ধন আরো ও দৃঢ় হচ্ছে.. আমরা আমাদের পরিবারের প্রতি বেশি যত্নশীল হচ্ছি.. অভিভাবকরা ভবিষ্যৎ প্রজন্মের কথা গুরুত্বের সঙ্গে ভাবছে,,, আজ করোনার জন্য সবাই তাদের পরিবারকে অনেকটা সময় দিতে সক্ষম হয়েছে,, সবাই একসাথে বসে নানান হাস্যরসাত্মক কথা বলে একে অপরের মন আনন্দে ভরিয়ে দিচ্ছে,, ঘরের মধ্যে থাকার জন্য বাড়ির কর্তারা আজ বুঝতে পারছে মেয়েরা সারাদিন কি পরিমান কাজ করে তাদের পরিবারের জন্য. নানা রকম কাজের জন্য আমাদের কিছু কিছু শখ অসম্পূর্ণ থেকে গিয়েছিল কিন্তু আজ করোনা একটা সুযোগ করে দিয়েছে সেইসব শখ পূরণ করার.. ধুলো জমা বইগুলো আজ আবার পরিষ্কার হচ্ছে,,আজ আবার সেই বই পড়া হচ্ছে.. কেউ কেউ তুলি, রং এর মাধ্যমে তার প্রতিভাকে প্রকাশ করছে.. বহু কাজ, বহু স্বপ্ন, বহু কথা জমে ছিল, যা আজ ধীরে ধীরে সম্পূর্ণ হচ্ছে.. এই সুযোগটার জন্মদাত্রী তো করোনা সংকটই বটে…
সমগ্র পৃথিবীর মানুষ পরিষ্কার পরিছন্নতাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিচ্ছে,, আজ কোন দরকারে ঘর থেকে বেরোনোর সময় মানুষ মাস্ক ব্যবহার করছে… মাস্ক এর কারণে অসংখ্য মানুষ বিভিন্ন প্রকার ক্ষতি থেকে বাঁচছে. কারণ মাস্ক থাকলে নাকে ধুলাবালি প্রবেশ করে না এবং কোন প্রকার ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া নাক দিয়ে প্রবেশ করতে পারে না…মাস্কের কারণে ইভটিজিং অনেক কমে গেছে.. লক ডাউন এর জন্য সকল প্রকার অবৈধ উপার্জন স্তব্ধ ফলে ইহা অবৈধ উপার্জনকারীদের জন্য আত্মবিশ্লেষণের একটি পথ.
সমগ্র বিশ্বের ডাক্তার, নার্স আজ দিনরাত করোনা আক্রান্ত রোগীদের সেবা করে চলেছে. তারা তাদের পরিবারের কথা না ভেবে, নিজের কথা না ভেবে নিজেকে উৎসর্গ করে দিয়েছে রোগীদের সেবায়.. এর থেকে বোঝা যায় মানুষ মানুষেরই জন্য…বিশ্ববাসী আজ সৃষ্টিকর্তাকে ডাকছে, সৃষ্টিকর্তার কাছে ক্ষমা প্রার্থনা করছে তাদের নানান কুকর্মের জন্য. আজ মানুষ শুধু নিজের কথা নয় বিশ্ববাসীর কথা ভাবছে. যারা করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে তাদের জন্য মানুষ প্রার্থনা করছে ফলে নিজের আত্মা ও পরিশুদ্ধ হচ্ছে.. যারা করোনায় আক্রান্ত তাদের জন্য দুনিয়ার অসংখ্য মানুষ রোগ মুক্তির জন্য প্রার্থনা করছে. সমগ্র দুনিয়াব্যাপী বিজ্ঞানীরা ভাইরাস প্রতিরোধক ভ্যাকসিন আবিষ্কার করার জন্য গবেষণা শুরু করেছে.. চিকিৎসা বিজ্ঞানে নতুন নতুন চিন্তাশীল ব্যক্তির জন্ম হচ্ছে.. এর পাশে পাশে নেশাগ্রস্ত মানুষেরা নেশা করতে পারছে না.. অনেক মানুষ ধূমপান, মদ্যপান, জুয়া খেলা ইত্যাদি থেকে দূরে থাকছে. আগে প্রায়শই ধর্ষণের নিউজ টিভিতে চলত কিন্তু এখন আর কোন মেয়ে ধর্ষিত হচ্ছে না, সব মেয়েরা এখন নিরাপদে আছে,, এখন জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গি হামলা ও হচ্ছে না.. এতসব ভালো কিছু তো শুধুমাত্র করোনার জন্যই হচ্ছে.. ঈশ্বর যে সর্বশক্তিমান তা অনেকটাই প্রমাণ হয়েছে…
থমকে যাওয়া পৃথিবী ও মানুষের কারণে কমে গেছে বায়ু দূষণ,শব্দ দূষণ. পৃথিবীর তাপমাত্রা আবার ধীরে ধীরে কমতে শুরু করেছে. বিশ্ব উষ্ণায়নের ফলে যে মেরু প্রদেশ বরফ গলে যাচ্ছিল আজ সেই মেরু প্রদেশের বরফের গলন অনেকটাই কমে গিয়েছে.. সমুদ্রতলের উচ্চতা আবার স্বাভাবিক অবস্থায ফিরে আসছে.. পাখিরা আজ মহা আনন্দে নির্মল বাতাসে উড়ছে,, পশুপাখিরা একটু শান্তিতে থাকতে পারছে,, বায়ুমণ্ডলের ওজোন স্তর আজ নিজে নিজেই রিকভার হচ্ছে.. আজ আকাশের দিকে তাকালে আকাশটাকে আরো একটু বেশি ঝকঝকে মনে হয়,, রাতে তারাদের একটু বেশি উজ্জ্বল মনে হয়,, আজ দূষণমুক্ত বাতাস বইছে.. আজ চারিদিক স্তব্ধ,, মনে হয় যে, নিস্তব্ধতার আর ও একটি শব্দ আছে যা বহুকাল শুনিনি. করোনা মানুষকে অনেক শিক্ষা দিয়েছে,, আজ মানুষ বুঝতে পারছে-প্রকৃতির অপব্যবহার করলে প্রকৃতি কোনো-না-কোনোভাবে তার বদলা নেবেই…
বহু মৃত্যু,, বহু ক্ষয়ক্ষতির পর কোন একদিন হয়তো এ সংকট কেটে যাবে,, আমরা একদিন অবশ্যই জয় করব.. আলোময় সুন্দর দিন আবার ফিরে আসবে কিন্তু তখন যেন আমরা এই সময়কে ভুলে না যাই. করোনা সংকট থেকে প্রাপ্ত শিক্ষাকে না যেন ভুলে যাই.. কিন্তু এ মুহূর্তে একটাই কথা বলব,,”মানুষ নত হও প্রকৃতির কাছে,, নত হও তুমি সৃষ্টিকর্তার কাছে”..

3+

Leave a Comment

error: Content is protected !!